Home / Lif-Style / মেয়েরা ছেলেদের নিয়ে কি চিন্তা করে! জানলে লজ্জ্বা পাবেন

মেয়েরা ছেলেদের নিয়ে কি চিন্তা করে! জানলে লজ্জ্বা পাবেন

x

আমাদের সমাজে প্রতি পদে পদেই মেয়েরা নির্যাতিত হচ্ছে-এ ধরনের কথা অহরহই পত্রপত্রিকায় আমাদের চোখে পড়ে। কিন্তু ছেলেরাও যে নির্যাতনের শিকার হতে পারে এই বিষয়টি এখনো অনেকে মানতে নারাজ। আমরা সবাই জানি নির্যাতন শুধু শারীরিকভাবেই হয় না, মানসিকভাবেও হয়। তাই ছেলেরা চায় কিছু বিষয় আছে, যা মেয়েদের জানা উচিত। যেগুলো জানার ফলে ছেলেদের প্রতি মেয়েদের আচরণে কিছুটা হলেও পরিবর্তন আসবে।

যেসব বিষয়ে ছেলেরা চায় মেয়েরা জানুক তার কিছু দিক তুলে ধরা হয়েছে ব্লু গ্যাপ ওয়েবসাইটে। চলুন, এক নজরে দেখে নিন কোন বিষয়গুলো মেয়েদের জেনে রাখা ভালো :

১. সাধারণত মেয়েরা কোনো ছেলের বাজে আচরণ দেখে ধারণা করে নেয় সব ছেলেরাই বুঝি এমন হয়। কিন্তু বিষয়টা এমন নয়। পৃথিবীতে কোনো মানুষই একরকম হয় না। একেকজনের আচরণ একেক রকম। একজনকে দেখে আরেকজনকে বিচার করা ঠিক নয়।

২. ছেলেরাও কষ্ট পায়। এ বিষয়টি মেয়েরা যেন মানতেই চায় না। প্রতিটি মানুষের আবেগ থাকে। ছেলেরাও ব্যতিক্রম নয়। তাই অযথা তাদের কষ্ট দিয়ে লাভ কি?

৩. মেয়েরা অনেক বেশি সন্দেহপ্রবণ হয়ে থাকে। তাদের ধারণা, ছেলেরা তাদের কাছ থেকে সবকিছু লুকায়। এমনটা ভাবার কোনো কারণ নেই। কারণ, সবকিছু প্রতিক্রিয়ার ওপর নির্ভর করে। যখন কোনো ছেলে সত্যি কথা স্বীকার করে তখন মেয়েরা অনেক বেশি প্রতিক্রিয়া দেখিয়ে ফেলে। ওই অপ্রীতিকর মুহূর্তকে এড়াতে ছেলেরাও বিভিন্ন বিষয় লুকাতে বাধ্য হয়। তাই মেয়েরা সাবধান! যদি ছেলেদের সব কথা জানতে চান, তাহলে প্রতিক্রিয়া থেকে বিরত থাকুন।

৪. পাশের বাসার আন্টি কী মনে করবে, এই আতঙ্কটা সব মেয়েদের মধ্যেই কাজ করে। আর যা ছেলেদের একদমই পছন্দ না। তাই অন্যেরা কী ভাববে সেই কথা প্রেমিকের সামনে বারবার না বলাই ভালো।

৫. মেয়েরা আজকাল গাড়ি চালায়, মোটরবাইক চালায়। আর ভাবে শুধু তারাই একমাত্র ভালো চালক। আর পৃথিবীর সবাই ভুল গাড়ি চালায়। মেয়েদের এ ধরনের চিন্তা ছেলেদের একদমই পছন্দ না।

৬. ছেলেরা খেলাধুলা পছন্দ করে। আর মেয়েরা ঠিক তার উল্টোটা। একটি বিষয় নিয়ে পছন্দ-অপছন্দ থাকতেই পারে। কিন্তু তাই বলে ছেলেরা যখন এসব খেলা নিয়ে কথা বলবে, তখন মুখ গোমড়া করে বসে থাকতে হবে। যেন জোর করে এসব বিষয়ে কথা বলতে না দেওয়া। কিন্তু আফসোস, এই বিষয়ে ছেলেরা বিরক্ত হলেও কিছুই বলতে পারে না। উল্টো মেয়েদের অভিমান ভাঙাতে হয়।

৭. মেয়েরা শুধু ছবি তোলার সময়ই হাসে। অথচ কারণে-অকারণে মুখ গোমড়া করে বসে থাকতেও মেয়েদের জুড়ি নেই, যা ছেলেরা একদম পছন্দ করে না। তাই মেয়েরা, আজ থেকে নিজের প্রেমিকের সামনে হাসুন, প্রাণ খুলে হাসুন।

৮. ছেলেরা যখন নিজের প্রেমিকাকে বলে যে তোমাকে অনেক সুন্দর লাগছে, তখন তারা মন দিয়েই বলে। অথচ মেয়েরা ভাবে, তাকে পটানোর জন্য বলছে। আরে, মেয়েরা কেন ভুলে যান ছেলেটি আপনাকে পছন্দ করে বলেই আপনার সঙ্গে তার একটি সুন্দর সম্পর্ক রয়েছে। তাই অযথা আপনাকে পটানোর কিছু নেই বা বাড়িয়ে বলারও কিছু নেই। তাই প্রেমিকের কথা বিশ্বাস করতে শিখুন। ঠকবেন না।

৯. ছেলেরা সাধারণত উদার প্রকৃতির মেয়েদের পছন্দ করে। যে মেয়েরা একটু খুঁতখুঁতে স্বভাবের হয়, তাদের ছেলেরা সব সময় এড়িয়ে চলে।

১০. কিছু মেয়ে আছে যারা সুন্দর, লম্বা, সুদর্শন ছেলেদের পেছনে ঘোরে। তারা সেসব ছেলেদের কাছ অনেক বেশি প্রত্যাশা করে থাকে। কিন্তু মেয়েদের মনে রাখা উচিত, সুন্দর ছেলে মানেই সুন্দর মনের অধিকারী হবে এমনটা ভাবা ঠিক না। জীবনসঙ্গী সুন্দর মনের হওয়াটা খুবই জরুরি। তাই অযথা চেহারার পেছনে ঘুরে কোনো লাভ নেই।

১১. মেয়েরা নিজেদের সিদ্ধান্ত বা চিন্তাকে প্রায়ই সময় সঠিক মনে করে। ছেলেদের কাছে এই বিষয়টি খুবই অপছন্দের। ভুল করলে স্বীকার করতে ক্ষতি কি? তাই আজ থেকে অযথা ছেলেদের ওপর দোষ চাপানোর কাজটি ভুলেও করবেন না।

১২. ছেলেরা চায় একজন মেয়ে তার জীবনের শক্তি হিসেবে কাজ করুক, দুর্বলতা নয়। যেসব মেয়েরা বিপদে-আপদে সব সময় তাকে সাহস জোগাবে এমন মেয়েদেরকেই ছেলেরা পছন্দ করে।

About admin

Check Also

মেয়েদের শরীরের সবচেয়ে দুর্বল পয়েন্ট কি?

x মেয়েদের শরীরে এমন কিছু জায়গা আছে যেখানে স্পর্শ করলে মেয়েরা অনেক বেশি ‘টার্ন অন’ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *