Breaking News

বাবাকে হারালেন অভিনেত্রী শ্রীলেখা মিত্র

অ'ভিনেত্রী শ্রীলেখা মিত্রর বাবা প্রয়াত হলেন। শনিবার গভীর রাতে প্রয়াত হন তিনি। মাকে কয়েক বছর আগেই হারিয়েছিলেন শ্রীলেখা। এ বার চলে গেলেন বাবাও।

গতকাল অর্থাৎ রবিবার TV9 বাংলাকে এই খবর জানিয়েছিলেন শ্রীলেখার বোন। সোমবার সকালে ফেসবুকে শ্রীলেখা একটি পোস্ট করেন। সেখানে লিখেছেন ‘আমা'র বাবা’। অসংখ্য অনুরাগী, শুভান্যুধায়ী জানতে চেয়েছেন, ঠিক কী হয়েছে। আর যাঁরা জানেন, তাঁরা শ্রীলেখাকে শান্ত থাকার, শক্ত থাকার অনুরোধ জানিয়েছেন।

কিছুক্ষণ পরে ফের সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি পোস্ট করেন শ্রীলেখা। ব্যক্তিগত ভাবে অজস্র ফোন গ্রহণ করতে এই মুহূর্তে অ’পারগ তিনি। আলাদা করে সকলকে মেসেজের উত্তর দেওয়াও সম্ভব হচ্ছে না। সে কারণে ফেসবুকে তিনি লেখেন, ‘আমি ফোনে কথা বলার জন্য তৈরি নই এখনও। দয়া করে বোঝার চেষ্টা করুন, ওঁকে ছাড়া, আমা'র সব কিছুর পিলার, আমা'র বটগাছকে ছাড়া গোটা পৃথিবীর মুখোমুখি 'হতে আমি তৈরি নই। আমি ঠিক নেই…। আমি ঠিক 'হতে চাইও না।’

মা চলে যাওয়ার পর বাবাকে আগলে রাখতেন শ্রীলেখা। বাবা তাঁর বন্ধুর মতো হয়ে গিয়েছিলেন। গত ২৮ জুলাই বাবার স'ঙ্গে শেষ ছবি ফেসবুকে শেয়ার করেছিলেন শ্রীলেখা। কোনও পারিবারিক ঘরোয়া অনুষ্ঠানে বাবা এবং মেয়েকে নিয়ে গিয়েছিলেন শ্রীলেখা। সেখানে বাবার এবং তাঁর পোশাকের রং এক ছিল। তাই ছবির ক্যাপশনে লিখেছিলেন, ‘বাবা, আমি সেম সেম’।

শ্রীলেখার বাবা আজীবন বামপন্থী মনোভাবাপন্ন ছিলেন। ছোট থেকেই সেই পরিবেশে বড় হয়েছেন শ্রীলেখা। নিজের মধ্যেও সেই মতাদর্শ ধীরে ধীরে তৈরি হয়েছিল। বাবার আদর্শেই নিজের রাজনৈতিক মনন তৈরি করেছিলেন। গত বিধানসভা নির্বাচনের আগে বামপন্থী প্রার্থীদের সমর'্থনে বহু সভা, মিছিল, বক্তৃতায় সক্রিয় অংশ নিয়েছিলেন তিনি। বামপন্থার আদর্শ আজীবন নিজের মধ্যে শ্রীলেখা লালন করবেন বাবার দেখানো পথেই।

সদ্য ভেনিস চলচ্চিত্র উৎসবে কাটিয়ে প্রায় এক মাস পরে ভারতে ফিরেছিলেন শ্রীলেখা। আদিত্য বিক্রম সেনগু''প্ত ের তৃতীয় ছবি, ‘ওয়ানস আপন এ টাইম ইন কলকাতা’ ৭৮ তম ভেনিস আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে জায়গা করে নিয়েছে। এই ছবিতে অ'ভিনয় করেছেন শ্রীলেখা। এই ছবির জন্য বিদেশের মাটিতে দাঁড়িয়ে সম্পূর্ণ অচেনা মানুষদের কাছ থেকে প্রশংসা পেয়ে আপ্লুত ছিলেন শ্রীলেখা। সেই অ'ভিজ্ঞতার কথা তুলে ধরেছিলেন সোশ্যাল মিডিয়ায়। উৎসব প্রা'ঙ্গনে ঘুরে ঘুরে প্রচুর সেলফি তুলেছেন। সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে তা শেয়ারও করে দিয়েছেন অনুরাগীদের স'ঙ্গে। কখনও বা স'ঙ্গে পেয়ে গিয়েছেন ইতালিয়ান অ'ভিনেত্রী মিরিয়ামকে। রে'ড কার্পেটের অসাধারণ অ'ভিজ্ঞতার কিছু মুহূর্ত ভাগ করে নিয়েছেন সোশ্যাল ওয়ালে। আন্তর্জাতিক মঞ্চে দাঁড়িয়ে দেশকে প্রতিনিধিত্ব করেছেন তিনি। তাঁর এই সাফল্যে গর্বিত বাংলার দর্শক। মেয়ের এই সাফল্যে গর্বিত ছিলেন তাঁর বাবাও। আচমকা তাঁর চলে যাওয়া এখনও মেনে নিতে পারছেন না অ'ভিনেত্রী।

শ্রীলেখার জীবনে স্ট্রাগল কম নেই। স্পষ্ট কথা স্পষ্ট ভাবে বলেন তিনি। বহুবার ট্রোলিং সামলাতে হয়েছে। কিন্তু কোনও কিছুতেই ভেঙে পড়া তাঁর স্বভাব নয়। বরং পজিটিভ থাকতে ভালবাসেন। অনুরাগীদেরও সেই পজিটিভ থাকার বার্তাই দেন। প্রতিটি কাজে নিজেকে নতুন করে ভাঙেন। নিজের প্রতি চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দেন। নিজের পারফরম্যান্স কী ভাবে আরও ভাল করা যায়, তার নিরন্তর প্রয়াস থাকে শ্রীলেখার। ব্যক্তিগত শোক কাটিয়ে ফের তিনি ঘুরে দাঁড়াবেন, এই আশায় রয়েছেন দর্শক। বাবা, মাকে মনে রেখেই নিজের লড়াই আরও শক্ত ভাবে লড়তে পারবেন শ্রীলেখা, এই কামনা করেছেন তাঁর অনুরাগীরা।

About Admin_dhakasongbad

Check Also

‘তৃণমূলের সবাই বাচ্চাসমেত ঘুরছে’, নুসরত প্রসঙ্গে টেনে কটাক্ষ সায়নীকে, সপাট জবাব নায়িকার

ভোটে জিততে না পরালেও, সায়নী ঘোষের জনপ্রিয়তা রাজনীতির ময়দানে এতটুকুও কমেনি। বরং দিন দিন বেড়েই …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *